www.muktobak.com

প্রথম আলোর কড়া সমালোচনা, তবু লেখা ছাপলো প্রথম আলো


 মুক্তবাক রিপোর্ট    ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮, মঙ্গলবার, ২:০৮    দেশ


নির্বাচনের আগ মুহুর্তে নানা ঘটনাই উঠে আসছে গণমাধ্যমে। এরমধ্যে ভালো-মন্দ দুইই আছে। নির্বাচন পূর্ব গণমাধ্যমের সার্বিক অবস্থা নিয়ে  লিখেন সাংবাদিকতার শিক্ষক ও সাবেক প্রধান তথ্য কমিশনার ড. মো. গোলাম রহমান।

এতে গণমাধ্যমের সংবাদ নিয়ে তিব্র সমালোনা করেন তিনি। অভিযুক্ত করেন প্রথম আলোকে।  সেই লেখা আবার উপসম্পাদকীয় হিসেবে ছেপেছে প্রথম আলো। বিষয়টি ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন সংবাদকর্মীরা।

'গণমাধ্যমেও লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড দরকার' শীর্ষক লেখায় ড. কামাল হোসেনের ওপর হামলা ও তার 'খামুশ' উক্তি প্রসঙ্গে ড. মো. গোলাম রহমান লেখেন, বিশেষ করে প্রথম আলোর কথাই বলব। তারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বলে। কিন্তু আমরা দেখলাম প্রথম আলো ড. কামাল হোসেনের এই আচরণের খবর গুরুত্ব দিয়ে ছাপেনি। তারা গুরুত্ব দিয়েছে কামাল হোসেনের গাড়িবহরে হামলার খবরের প্রতি। ড. কামালের অশোভন মন্তব্যকে ছোট করে দেখে তাঁর গাড়িবহরে হামলার ঘটনাকে বড় করে দেখানোর চেষ্টা করা হয়েছে। আমার মনে হয় এখানে বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার নীতিমালা অনুসৃত হয়নি। প্রথম আলোর মতো একটি দায়িত্বশীল পত্রিকার কাছে আমরা এটা আশা করি না।

প্রথম আলোর কাছে প্রত্যাশা বেশি উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন,

প্রথম আলো বরাবরই মুক্তিযুদ্ধের কথা বলে। স্বাধীনতার কথা বলে। পাশাপাশি তাদের মধ্যে স্ববিরোধিতাও আমরা খেয়াল করি।

তিনি ডেইলি স্টারেরও তীব্র সমালোচনা করেন। সরকারের বিরোধীতাই যেন এ দুটি পত্রিকার উদ্দেশ্য অভিযোগ করে লেখেন,

নির্বাচন চলাকালে এবং নির্বাচনোত্তর সময়ে প্রতিটি স্তরেই সাংবাদিকদের অনেক দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হয়। সবার খবর তাদের পরিবেশন করতে হয়। কিন্তু প্রথম আলো ও দ্য ডেইলি স্টারকে আমরা সব সময় সরকারবিরোধী খবর পরিবেশন করতে দেখি। আমি বলছি না, তাদের কোনো খবর সত্য নয়। কিন্তু আমি বলব, তাদের মূল স্পিরিটটা যেন সরকারের বিরোধিতা করাই।

১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসে ডক্টর কামাল হোসেনের ভোট পাহারা দিন শীর্ষক একটি ছাপা হয়েছে  প্রথম আলো তে।  Our Constitution and the Goals of Independence লেখা ছাপা হয় ডেইলি স্টারেও। এ প্রসঙ্গে ড. গোলাম বলেন,

সম্প্রতি দুটো পত্রিকায় ড. কামাল হোসেনের নিবন্ধ ছাপা হয়েছে। প্রথম আলো ও ডেইলি স্টার। অন্য কোনো পত্রিকায় তো ওই নিবন্ধ আসেনি? তার মানে কী? তাঁকে গ্লোরিফাই করার একটা চেষ্টা চলছে। এই যে অতিরিক্ত উৎসাহ নিয়ে তাঁকে সামনে আনা হচ্ছে, তাঁকে গ্লোরিফাই করা হচ্ছে, তাতে কি মানুষের মনে প্রশ্ন আসবে না?

তবে ২১ আগস্ট  জজ মিয়া ইস্যুতে তিনি প্রথম আলোর প্রশংসাও করেছেন। সেসঙ্গে সন্দেহ পোষণ করেন প্রথম আলো আর আগের অবস্থানে আছে কি না। ড. গোলাম রহমান লেখেন, ২১ আগস্ট নিয়ে প্রথম আলো ভালো খবর করেছে, তারা জজ মিয়ার কাহিনি প্রকাশ করেছে। আমি তার প্রশংসা করি। কিন্তু প্রথম আলো সেই ভূমিকায় আছে কি না, সেই প্রশ্নও অনেকে করছেন।




 আরও খবর