www.muktobak.com

মিডিয়া হাউজের তদারকি করবে কে?


 মুতাসিম বিল্লাহ নাসির    ২৩ ডিসেম্বর ২০১৮, রবিবার, ১:২৯    দেশ


দৈনিক জনকন্ঠ পত্রিকা আজকে প্রকাশ হয়নি, অন্তরালের কারণ মিডিয়া কর্মীদের বেতন দিতে পারছে না পত্রিকাটি।

এটা মিডিয়ার নিত্য নৈমিত্তিক ঘটনা, ক্যাম্পাসে থাকতে ভোরের ডাক পত্রিকায় ৬ মাস কাজের স্যালারি দিয়েছিলো ৫০০ টাকা। প্রিয়ডটকম অনলাইনে কাজ করছিলাম, আমাদের আশ্বস্থ করা হয়ছিলো যারা কাজ করবে তাদের ক্যাম্পাস প্রতিনিধি হিসেবে বেতন দিতে না পারুক অন্তত ইন্টারনেট খরচ বাবদ ২০০০ হাজার টাকা দেওয়া হবে। কিন্তু দুই মাস কাজ করার পর কোনো কারণ না দেখিয়ে বাদ দেওয়া হলো। বেতনের বিষয়ে বারবার নক করলেও সারা পাইনি।

এরপরে কর্মজীবনে আরও কয়েকটি মিডিয়ায় কাজ করেছি। এর মধ্যে দৈনিক শেয়ারবিজ পত্রিকাকে শুধুমাত্র পেয়েছিলাম যারা তাদের ওয়াদা অনুযায়ী বেতন ভাতা পরিশোধ করেছে। মাসের মাঝখানে চাকরি ছেড়ে দিলে ডেকে নিয়ে সে টাকাটুকোও তারা দিয়েছিলো। এর বাইরে দেশের অন্য যে পত্রিকাগুলোতে কাজ করেছি তাতে নেতিবাচক অভিজ্ঞতাই বেশি।তবে হাতে গোনা দুয়েকটি পত্রিকা বাদে সবগুলো প্রিন্ট মিডিয়ায় ফ্রিল্যান্স ফিচার লেখকদের কোনো ধরণের টাকা পয়সা দেওয়া হয় না।

শুধুমাত্র পত্রিকার পাতায় নিজের নাম দেখার সুখানুভুতি নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় ফ্রিল্যান্স লেখকদের।অপরদিকে মফস্বল সাংবাদিকের বিষয়ে অধিকাংশ মিডিয়ারই অবস্থান হলো কোন বেতন ভাতাতো দুরের কথা তাদেরকে সম্পাদক ব্যাক্তিগতভাবে চিনেনই না।কিন্তু তারা নানা কষ্ট ও ঝুঁকি মাথায় নিয়ে সংবাদ সংগ্রহ করেন যা হয়ত অনেক পাঠক জানেই না।একজন মিডিয়া কর্মী কতটা ঝুকিঁতে নিজের জীবনকে ঠেলে দিয়ে এ পেশাকে বরণ করে নেয় তা হয়ত অনেকে কল্পনাই করতে পারবে না। এর ফলে ভালো মানুষের, মেধাবীদের এই পেশাকে নেওয়ার আগ্রহ থাকলেও কয়েক বছরের মধ্যে তা মাটি হয়ে যায়। অবশেষে দুবৃত্তদের হাতেই চলে যায় এর চাবিকাঠি।

হাল আমলে মিডিয়া কর্মীদের ছাটাই হওয়ার মাত্রাও বেড়েছে অনেকগুন। ওয়েজবোর্ড এর বিষয়েও বাস্তবতা হলো কাজীর গরু কেতাবে আছে গোয়ালে নেই এর মতো অবস্থা। কথা হলো যে প্রতিষ্ঠান তার অধীনস্থদের সাথে করা চুক্তি রক্ষা না করাকে স্বাভাবিকভাবে ভেবে নিয়ে এগোয় তাদের হাতে দেশ কতটুকু নিরাপদ।তারা গণমানুষের দুরবস্থা নিয়ে ভাববে নাকি নিজেদের আখের গোছানো নিয়ে ভাববে।সৃজনশীল তরুণদের জন্য ব্যাঙের ছাতার ন্যায় গজিয়ে ওঠা এসব মিডিয়া হাউস বড় বিপদজনক।

লেখক : ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক ও লেকচারার, কম্যুনিকেশন মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগ, ইউনিভার্সিটি অব ডেভেলপমেন্ট অল্টারনেটিভ (ইউডা)




 আরও খবর