www.muktobak.com

পদত্যাগ প্রসঙ্গে যা বললেন সারাবাংলার নির্বাহী সম্পাদক মাহমুদ মেনন (ভিডিও যুক্ত)


 মুক্তবাক রিপোর্ট    ১৫ মার্চ ২০২০, রবিবার, ৯:২১    খবর


(পদত্যাগের পর সবশেষ যে বক্তব্য সারাবাংলা ডট নেটের নির্বাহী সম্পাদক মাহমুদ মেনন সহকর্মীদের প্রতি দিয়েছেন সেটি ফেসবুক ্ওয়ালে পোস্ট করেছেন তিনি। মুক্তবাকের পাঠকদের জন্য সেটি তুলে ধরা হলো। - মুক্তবাক)

আমাদের রিজাইন করতে বলা হয়েছে। একই সাথে একজনকে পাঠানো হচ্ছে যে আমাদের লুকআফটার করবে। সেটা আমার জন্য চুড়ান্তভাবেই ডিস কমফোর্ট জোন তৈরি করেছে। সারাবাংলায় গত দুই বছর ধরে আমরা যারা কাজ করছি, অনেকেই শুরুর দিকের কলিগ, আবার অনেকে আছেন পরে জয়েন করেছেন।

শুরুর দিন থেকে যদি আমরা দেখি তাহলে সারাবাংলাকে আমরা একটা বালুকণা থেকে তৈরি করেছি। প্রতিটি বালুকণার সাথে আমরা সম্পৃক্ত ছিলাম। আমরা আগে যে অফিসে ছিলাম, সে অফিস চেঞ্জ করা হয়েছে। নতুন অফিসে এসেছি।

আমি আপনাদের ধন্যবাদ জানাতে চাই এজন্য যে সবাই এত ডেডিকেটেডলি কাজ করেছে; যখন কোনো মিডিয়া দাঁড়াতে পারছে না, নতুন কোনো মিডিয়া গত ৪/৫ বছরে বা ৬/৭ বছরে দাঁড়াতে পারেনি। যেই এসেছে সেই ঝরে গেছে অথবা এমনভাবে ল্যাক বিহাইন্ড হয়ে গেছে যে, সাধারণ মানুষের কাছে ওই ভাবে পৌঁছাতে পারছে না, সেই তুলনায় সারাবাংলা অপেক্ষাকৃত ভালো করেছে। আমরা এটাকে টেকঅফ করে আকাশে উঠিয়ে নিতে পেরেছি।

এটা কী হতে পারে যে... আমি কারো ষড়যন্ত্র বলতে চাই না। আমার কাছে মনে হয়েছে খুবই আনওয়ান্টেডলি। ১২ মার্চ বৃহস্পতিবার আমাকে কিছু ডিসিশন জানিয়ে দেয়া হয়েছে। ডিসিশনগুলো আমার কাছে গ্রহণযোগ্য মনে হয়নি। যে রিজনগুলো দেখানো হয়েছিল... আমরা দুটো ভুল নিউজ অবশ্যই দিয়েছি। সেজন্য এতটা শাস্তি... হয়না আসলে। এতটা শাস্তি পাওয়ার মত না। সেগুলো আমি আর বলতে চাইনা।

আমি বলতে সারাবাংলার কথা। আপনারা যারা শুরু থেকে আছেন তাদেরকেও দেখেছি। যারা পরে এসেছেন তারা দেখেছেন যে এরকম একটা প্রতিষ্ঠান দাঁড় করানোর জন্য ঘুম, সামাজিকতা অনেক কিছুই বাদ দিতে হয়। আমি জানি পারিবারিকভাবে আপনারা অনেক সামাজিক অনুষ্ঠান বাদ দিয়েছেন। আমিই বাধ্য করেছি অনেক সময়; সেই কারণেই সারাবাংলা আজ এই অবস্থানে।

নিরপেক্ষ জায়গায় থেকে আমরা এটা চালাতে পেরেছি। আমরা খুব চেষ্টা করেছি এটা যতখানি প্রফেশনাল করা যায়, ততটা প্রফেশনাল করতে। আমরা মোটামুটি ভালো জায়গায় এটাকে নিতে পেরেছি। এটার অবনতি যেন কোনো দিন না হয়, 

এখানে এখন যারা আছেন তাদের প্রতি প্রত্যাশা।

এমন কথাও ছিল যে সারাবাংলা বন্ধ করেও দিবে।  এতটা ডেসপারেট ছিল। অথবা এটা কিছু দিন বন্ধ রেখে দেখবে এরপর কি করা যায়। আমি রিকোয়েস্ট করেছি।

আসলে এখন সারাবাংলার কাজ হলো কিছু রিপোর্ট হওয়া এবং সেগুলো পাবলিশ হওয়া। কন্টেন্টের ডাইভারসিফাই করা। যারা এখন আছেন তারা সেগুলো করে যাবেন। যে যার দায়িত্ব পালন করবেন ঠিকমত। এবং এটা যেন পড়ে না যায়। এটা এখন যে আকাশে উড়ছে সেখান থেকে নীচে নেমে না আসে। উপরে যেভাবে উড়ছে সেভাবে রাখার চেষ্টা করবেন। এটাই। লেট আস হোপ ফর দ্য বেস্ট।

 




 আরও খবর